ট্রেডিংয়ে যে ভুলগুলো হরহামেশা হয়

ট্রেড করার সময় যে ভয়গুলো বেশি আসে সেরকম কিছু বিষয় নিয়ে আজকের এই লেখা। এই স্টেজে নতুন পুরাতন সবাই কমবেশি পড়েছেন। আমি নিজেও অনেক অনেকবার এই ভুলগুলো করেছি, এখনো যে হয় না তা কিন্তু না। চলুন দেখি কার সাথে কোন ভুলগুলো কমন পড়ে।

ট্রেডে লস হবার হয়
ট্রেড এক্সিকিউট করার আগে যে ভয়টা সবথেকে বেশি আসে সেটা হলো লস হবার ভয়। ট্রেড নেওয়ার আগে মনের ভেতর কেমন কেমন করে, যদি লস হয়। অনেকে একটা ট্রেড লস হবার পর আরেকটা এন্ট্রি নিতে ভয় পাই এই ভেবে, যদি এবারের এন্ট্রিটাও লস হয়ে যায়। এভাবে দেখা যায় High probability এন্ট্রি পাবার পরেও আগের ট্রেডে লস হয়েছে বলে নতুন এন্ট্রি সিস্টেম মতো পাবার পরেও নিতে সাহস করি না। ফলাফল পরে দেখতে পাই যে এন্ট্রিতে যে পরিমান প্রফিট হতো তাতে করে আগের লসসহ রিকোভার হয়ে যেতো। এই ট্রেড নেবার ভয় আপনার ট্রেডিং সিস্টেম অনুসারে সিদ্ধান্ত নিতে পদে পদে বাধাগ্রস্থ করে। যার ফলে দেখা যায় মানসিক চাপ চলে আসে এবং আপনার কোন প্রফিটেবল সিস্টেম থাকার পরেও সফল হতে পারেন না।

সব সময় পারফেক্ট হতে চাওয়া,
যখন একটা বড় সেটাআপ মিস হয়ে যায় তখন এই ধরনের ব্যাপার ঘটবে। পরবর্তীতে আবার এত বড় সেটাআপ আসবে কিনা এসব ভাবতে ভাবনায় সময় চলে যায় অনেকটাই। অনেক সময় ভালো এন্ট্রি নেবার পরেও মার্কেটের একটু রিট্রেসমেন্টেও বিপরীত এন্ট্রি নিয়ে ফেলি আমরা। ফলাফল দেখা যায় সিস্টেমের বাইরে গিয়ে ট্রেড নেবার কারনে স্টপআউট হয়ে যাই অথবা সেই লসের ট্রেড ক্যারি করি। ভালো সেটাআপ খুজতে খুজতে দেখা যায় সেটাপ পাবার পরেও সেটা মিস হয়ে যায়। পরবর্তীতে যখন এন্ট্রি নেয়া হয় তখন অলরেডি অনেক দেরি হয়ে গেছে। সিদ্ধান্ত নিতে নিতে মার্কেটে অনেকখানি মুভ হয়ে গেছে। ফলাফল- সাপোর্ট লেভেল থেকে সেল নিয়ে বসে থাকি অথবা রেসিস্ট্যান্ড লেভেল থেকে বাই।

যদি লাভের ট্রেড লসে চলে যায়,
এটা একটা বড় টেনশন। নতুন পুরাতন সব ট্রেডার কোন একসময় হলেও এই প্যাচে পড়েছেন। অনেকে হয়তো এখনো এই সমস্যায় ভুগছেন। বলতে পারেন ইহা মহাশত্রু প্রফিটের ট্রেড ধরে রাখার জন্য। দেখা যায় ট্রেড ধরে রেখেছেন ৫০-৬০ পিপ মুভমেন্টের পর মার্কেট ঘুরে আপনার স্টপলস হিট করে ফেললো। আবার এমনটাও হয় আপনার ব্রেক ইভেন হিট করে টিপির দিকে যাওয়া শুরু করলো। এরকম নানা মার্কেট কন্ডিশনে হয়ে থাকে। ফলাফল যেটা হয়, আমাদের মস্তিস্কে আগের হিস্টোরীগুলো ঘুরতে থাকে। যদি আবার সেই একই ঘটনা ঘটে? যদি প্রফিটের ট্রেড স্টপলস হিট করে, ব্রেকইভেন হিট করে। এর ফলে আমরা যেটা করি, ট্রেড নেবার পর স্টপলস দেবার পরেও স্টপলস হিট হবার আগেই নিজেরা ক্লোজ করে ফেলি অথবা, স্টপলস বাড়াতে থাকি, যেন আগের মতো হিট না করে। আরে ভাই, যদি স্টপলস মুভই করাবেন তাহলে স্টপলস দেবার তো কোন দরকার দেখি না। যেখানে স্টপলস হিট করলে লস হতো ৫০-৬০ পিপ সেখানে আপনার ম্যানুয়েল মুভ করার কারনে সেটা একটা লসের ট্রেড ক্যারি করা হয়ে যায় ২০০-২৫০ পিপসের।

সব সময় প্রফিটের আশা করা,
আমরা একটা ট্রেড অপেন করলে সবার আগে কি ভাবি?
– এই ট্রেডে আমাকে ৩০-৫০ পিপস লাভ করতে হবে / এই ট্রেডে আমাকে ১০ ডলার লাভ করতে হবে।
এই একটা ব্যাপার আমাদের মানসিক চাপ বাড়িয়ে দেয়। যখনি ট্রেডটি লসে চলে যায় তখন আমরা আমাদের সিস্টেমে ঠিক থাকতে পারি না। দেখা যায় একটু লসে ম্যানুয়্যাল ক্লোজ করে বসে থাকি, আর তারপর মার্কেট আপনার ডাইরেকশনে যেতে থাকে।

যেটা হওয়া উচিত ছিল,
ট্রেড অপেন করার সময় এটা ঠিক রাখা যে আমি কত % লস করবো এই ট্রেডে। সপ্তাহশেষে আমি গেইনে আছি নাকি লসে আছি। যখনি আপনি প্রতিদিনের গেইন লস নিয়ে হিসাব করতে চাইবেন তখন আপনার অজান্তেই সাইকোলজির চিপায় পড়ে যাবেন। যার ফলাফল সিস্টেমের বাইরে গিয়ে ট্রেড হবে, প্রতি ট্রেডে লাভ করতেই হবে এই চাপটা চলে আসবে।

আসলে এত কথা যে বললাম এই ভুলগুলো কিন্তু আমার নিজেরও হয় মাঝেমাঝে। আগে হয়তো বুঝতে বুঝতে একাউন্ট জিরো হয়ে যেত আর এখন হয়তো ভুল ধরামাত্র একশন নেই। বলা অনেক সহজ কিন্তু সেসব মেনে চলা কঠিন। আর বিশেষ করে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে এটা আরো কঠিন কারন এটা লিকুইড টাকা নিয়ে ব্যবসা। চেষ্টা করবেন নিজের একটা ট্রেডিং প্ল্যান তৈরি করতে এবং দরকারে সেই প্ল্যান আপনার ট্রেডিং ডেস্কের সামনে রাখতে। একদিনে সফল ট্রেডার হওয়া পসিবল না, সময় দিন, শিখুন, ধীরে ধীরে সফল হতে পারবেন।

0 Shares
Share via
Copy link
Powered by Social Snap